Author Picture

লুব্ধক মাহবুব

কবি

লুব্ধক মাহবুবের একগুচ্ছ কবিতা

পথ চলা স্টেশনের ধুলোবতী পাগলের মাথার মতন এই ধুলোময় গোলকের জালে আছে যে যার তাপে। এখন আমার একমাত্র সঙ্গী নৈ:শব্দ, আমার সাথে কথা বলে, স্টেশন, লোকালয়; রেলগেট পেরিয়ে তির্যক বালিকাদের চোখে— মেঘলা মহুয়া— আগুন আগুন— কৃষ্ণচূড়ায়; কষ্ট পেলে আমাকে ভোলায়, বলে এবার তাহলে ‘একলা একলা পথ চলা।’ দক্ষিণের বিনম্র ঝাঁঝালো বাতাস জালের মতো টেনে টেনে….

লুব্ধক মাহবুবের একগুচ্ছ কবিতা

বাবার সোনার কলম বাবার কবরের পাশে, মাঝে ও ঠিক ওপরে কি রঙিন ফুলের সমাহার! মা’র কবরে রঙিন পাতা বাহার। বোন ও চুনিদার কবরে শান্ত সমাহিত ঘাস ফুল গুল্ম রাজি হারিয়ে গেছিলাম কোথায় কে জানে? স্কুল শেষ করে ভাল কলেজে ওঠার পুরস্কার, বাবার সেই সোনার নিবের পার্কার পেন। আহা! কি সে অনুভূতি! আজ, বেগম পাড়ার বাবারা….

লুব্ধক মাহবুবের তিনটি কবিতা

নি:সজ্ঞ ভালবাসা এখানে-সেখানে, মেঘের বিশাল দ্বীপের নীচে আকাশ অদৃশ্য হয়ে যায়, তার কোল থেকে দীর্ঘ। এবং দ্রুত উল্কা কম্পন হবে জানি। দূরের পাহাড়ে রহস্যময় আগুন জ্বলছে। ডাইনোসরের লাল চোখের মতো যে ঘুমিয়ে পড়ে ও পলক ফেলে। অন্ধকার ভেদ করে পাহাড়ের দিকে দীর্ঘ গর্জন শোনা যাচ্ছে। সে অন্ধকার, নিষ্ঠুর সময়ের স্মৃতিচিহ্ন মনে করে, রাতের বেলা যখন….

লুব্ধক মাহবুব এর দুটি কবিতা

ধ্রুবক প্রেম . ক্রমশ রাত এগিয়ে যাচ্ছে চাঁদ বেসামাল লাল হয়ে ঝুলে আছে আকাশে। এই ছাদের উপরে যেখানে ভেঙে পড়ে একটি ধ্রুবক ভয় মেঘ, শোকের মিছিলের মতো বৃষ্টির মুহূর্তের জন্য অপেক্ষা করছে। এক মুহূর্তেই মিলিয়ে যাচ্ছে সব। জানালার ওপাশে উষ্ণতায় কাঁপছে রাত পৃথিবীর বাতাস থমকে গেছে যেন এই জানালার বাইরে, অচেনা কোন চোখ তোমাকে এবং….

লুব্ধক মাহবুবের তিনটি কবিতা

মাতাল শুভ্রতা . উনিশ বছরেই প্রথম প্রেমের মত তুষারপাত দেখে মাতামামাতি করেছি। সতীর্থদের সঙ্গে এখনকার ধূলিসাৎ ডনবাসের, জাপোরোজিয়ার, মেড ক্যাম্পাসে। বাচ্চাদের মত। আজ খুব অন্ধকার; বৃষ্টির কারণে। পাহাড় দৃশ্যমান নয়। কেবল বৃষ্টির শব্দ। জীবন নিয়ে গেলো অন্তরালে। এবং বৃষ্টির পাশাপাশি ঠান্ডা নেমে আসে। আজ রাতে চাঁদ নেই, তারকা নেই। চাঁটগার ঐতিহাসিক জব্বরের ভেজা কাদার মধ্যে….

error: Content is protected !!