Author Picture

মুহাম্মদ আশরাফুল করিম

গবেষক ও গ্রন্থাগারিক

সূচনা ও বিকাশ পর্ব ( ১৯৪৭-১৯৪৮)

বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন সংগঠিত হয় সাতচল্লিশে উপমহাদেশের তদানীন্তন রাজনৈতিক পটভূমিতে নানা প্রশাসনিক ও সাংস্কৃতিক দ্বন্দ্ব-সংঘাতের মধ্য দিয়ে। প্রতিষ্ঠার পনের দিনের মধ্যেই (২৬/২৭ আগস্ট) সিদ্দিক বাজারস্থ লিলি কটেজে প্রথম রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কর্মীদের একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এরই প্রেক্ষিতে ১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় তমদ্দুন মজলিস আত্মপ্রকাশ করে। বিভিন্ন গবেষক ১৯৪৮ খ্রিস্টাব্দে জিন্নাহ্’র রবক্তব্যের প্রেক্ষিতে গড়ে ওঠা প্রতিবাদ….

ভাষা আন্দোলনের পর্যায় বিশ্লেষণ

ভাষা আন্দোলনের ঘটনা প্রবাহ আলোচনায় একটি প্রশ্নের উত্তর অনুসন্ধান আবশ্যক। কখন থেকে বাংলাকে রাষ্ট্র ভাষা করার দাবি উত্থাপিত হয় বা এ সংক্রান্ত চিন্তার উন্মেষ ঘটে। সাংগঠনিকভাবে এ আন্দোলন শুরু হয় ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার সাথে সাথেই। তবে এর মনস্তাত্ত্বিক পর্যায়টি গড়ে ওঠে অনেক পূর্বে। বাঙালির ভাষা অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম দীর্ঘদিনের। ভাষা আন্দোলনের ইতিহাসের সঠিকতা নিরুপণে….

ভাষা আন্দোলন ও আত্মপরিচয়ের রাজনীতি

বাঙালির আত্মপরিচয় অনুসন্ধানে বায়ান্নর ভাষা আন্দোলনের অবদান অবিস্মরণীয়। এই আন্দোলন শুধু মাতৃভাষার অধিকার আদায়ের আন্দোলন ছিল না, এটি ছিল নিজস্ব জাতিসত্তা, স্বাধিকার প্রতিষ্ঠা ও সাংস্কৃতিক স্বাতন্ত্র্য রক্ষার আন্দোলন। যা জাতিসত্তার স্বরূপ নির্ধারণে বাঙালি সংস্কৃতির সীমা নির্ধারণ করে। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন ইতিহাস বিচ্ছিন্ন বা আকস্মিক কোনো ঘটনা নয় — এর মূল ইতিহাসের গভীরে গ্রোথিত। বাঙালির আত্মপরিচয়ের….

error: Content is protected !!