Author Picture

কামরুল আলম সিদ্দিকী

জন্মঃ মঙ্গলবার ১৮ অঘ্রান ১৩৭৪, ৫ডিসেম্বর ১৯৬৭ পিতা মোঃ সিদ্দিকুর রহমান, মাতা আমেনা খাতুন। গ্রামঃ মোল্লা পাড়া, ডাকঃ দিলালপুর। উপজেলাঃ বাজিতপুর, জেলাঃ কিশোরগঞ্জ।
পড়াশোনাঃ বাংলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর।
কাব্যগ্রন্থ ১)বউ চোরা নাও(২০০৫), ২)সেই গ্রাম সেই ধূলি(২০০৬), ৩)মায়ের দেয়া মল্লির কবজ(২০০৮), ৪)বনবাসে খেলাঘর(২০১১), ৫)নদী ও নায়রি((২০১৩), ৬)বকুলতলার কথা(২০১৯), ৭)যৌথ কাব্যগ্রন্থঃ তের কবির পঙক্তিমালা(২০১৪)।

কামরুল আলম সিদ্দিকী’র একগুচ্ছ কবিতা

সেরিব্রালে হারানপাড়া সেরিব্রালে হারানপাড়া, রাত জমেছে ঊষে; হুঁশ ফিরেছে মনের চুলোয় ধিকিধিকি তুষে! তুষের জ্বালে হাড়ের ব্যথায় ওঠছে কথা ভালের— টের পেয়েছি পিঁড়ায় তোমার নড়ছে নূপুর কালের! একটু ধরো, জ্বালাই কুপি— ঠুলিমুসি খুঁজি, ঠুলি তোমার ভাঙছে বেড়াল, মনটা খারাপ বুঝি? মুখটা তোল চোখটা দেখি, কোন বিড়ালী নাচে; কোন সরালি ডুব দিয়েছে পরের গাঙ্গের মাছে! একটু….

কামরুল আলম সিদ্দিকী’র একগুচ্ছ কবিতা

জীবন . এক বসন্তের সখা তুমি আমের বোলে পাতা, এক শ্রাবণে তোমার সাথে ভিজেছিলো খাতা। এক পউষের সন্ধ্যাবাতি সাক্ষী আছে আজও, স্বাক্ষী আছে পোড়া সলতে মুখোমুখি রাতও। তেল পুড়লো সলতে পুড়লো, হলোনা শেষ কথা- হলোনা আর চোখের দেখা, এখন চোখে ব্যথা। বসন্ত রাত এলেই আজও চক্ষুপিদিম খুঁজি, আসল কবে হারিয়ে গেছে নকল সলতে গুঁজি। বোশেখ….

কদম রোগের অব্যর্থ মহৌষধ

লেখক করোনার বাংলায়ন করেছেন ‘কদম রোগ’ আপনি কি কদম বা করোনাভাইরাস পজিটিভ অথবা করোনার লক্ষণ দেখা দিয়েছে? দয়া করে হোমিও এন্টিমোনিয়াম টার্টারিকাম ৩০ সেবন করুন। অল্প সময়েই সুস্থ হবেন। যে কয়জনকে এই ঔষধ ইতোমধ্যে প্রয়োগ করেছি তাঁদের সবাই খুবই স্বল্পতম সময়ের মধ্যে আরোগ্য লাভ করেছেন। এটি এন্টিমনি ও পটাশের রাসায়নিক বিক্রিয়ায় তৈরি অম্লক্ষার। ক্ষার যেহেতু….

কামরুল আলম সিদ্দিকীর একগুচ্ছ কবিতা

তোমার জন্য বর্ষা রাখতাম . তোমার জন্য বর্ষা রাখতাম, কলাবতীর পাপড়ি হতাম। তোমার জন্য বাদল বেলা কেয়াবনের বৃষ্টি হতাম। তোমার জন্য কলাপাতা আমার পাশে খালি রাখতাম। তুমুল বৃষ্টি তোমায় আমায় ভাসিয়ে নিতে ঝড় চাইতাম। তোমার জন্য গঞ্জ কামাই, এক বারান্দা খালি রাখতাম। বৃষ্টি তোমার জীবন খাতা— সোনাপাতায় তুলে রাখতাম। এক আষাঢ়ে ভিজলে তুমি, কোন্ পথে….

কামরুল আলম সিদ্দিকীর একগুচ্ছ কবিতা

তোমার জন্য রাখছি তুলে . তোমার জন্য রাখছি তুলে আমার চোখের রক্ততারা ফুল। হয় যদিবা দেখা আমার, রেখো তোমার, বুকের ফোটা দু’কূল। তোমার সাথে দেখা হলেই বৃষ্টি হতো অমন খরার দিনে… মেঘেরা সব আসতো ফিরে, আসতো ফিরে উজান ঠেলে মীনে। আগুন ফুটে ফাগুন হতো, দোঁআশ দেশে বাণ ডাকতো জলে। দোঁআশ ফুলের মেয়ে তুমি, তোমায় দেখে….

error: Content is protected !!