Author Picture

ইয়ে থেকে বিয়ে

অপূর্ব চৌধুরী

জগতের বেশিরভাগ বিয়ে প্রথমে হয় দুটো পরিবারের মধ্যে। তারপর সর্ম্পক হয় দুটো মানুষে। এটাকেই লোকে এখন বলে এরেঞ্জড ম্যারেজ। আদি কাল থেকেই এটা হয়ে আসছিল, এখনও বেশিরভাগ বিয়েগুলো পারিবারিক সম্মতি ও সর্ম্পকে হয়। বিয়েতে সর্ম্পক হয় না, সর্ম্পক গড়ে। প্রেমে সর্ম্পক গড়ে ওঠে।

আধুনিক প্রেমের বিয়ে যতটা সিনেমা গল্পে হয়, বাস্তবে ঠিক ততটা নয়।  বিয়ের আগে প্রেম- মানুষটিকে বোঝার; বিয়ের পরে প্রেম- প্রেমকে বোঝার।

বিয়ে একটি সর্ম্পক, সামাজিক সর্ম্পক, দুটো মানুষের দৈহিক সর্ম্পকের সামাজিক সম্মতি। কিন্তু একমাত্র সর্ম্পক নয়৷ সর্ম্পকটাকে সমাজ সভ্যতার নামে একমাত্র করা হয়৷ বন্ধু অনেক থাকে, পথ চলতে চলতে একেকজনের সাথে একেকটি ভালো লাগা কাজ করে। ভালো লাগার হাত ধরেই সর্ম্পক বন্ধুত্বময় হয়ে ওঠে, সর্ম্পক গড়ে বন্ধুত্ব যেন বন্ধু হতে চাওয়ায় ছোটে।

বিয়ে ঠিক এমন একটি বন্ধুত্ব যা অন্য বন্ধুত্বের মতো হয়েও ভিন্ন৷ বন্ধুত্বের মধ্যে যেমন সর্ম্পকের একেকটি সূত্র কাজ করে, তেমনি বিয়ের ভিতরেও বিয়ে ভিন্ন আরো কিছু সর্ম্পক কাজ করে, কাজ করতে বাধ্য৷ বিয়ের বন্ধুত্বের সূত্র এক ধরণের, আবার নিজের ভালোলাগাকে কেন্দ্র করে অনেক বন্ধু যেমন থাকে, বিয়ের বন্ধুত্বের সূত্রের বাহিরেও তেমনি অনেকগুলো সূত্রের সর্ম্পক থাকা স্বাভাবকি। কিন্তু সমাজের ভয়ে, কৃত্রিম নিয়মের ভয়ে এতো বড় অ-প্রাকৃতিক অনিয়মকে মানুষ নিয়ম বানিয়ে মানতে বাধ্য করছে৷

জোর করে নিয়ম মানতে গিয়ে আড়ালে জন্ম নেয় অনিয়মের পাহাড়। বিয়ে মানে দুটি মনের ভালো লাগায় হাতকড়া।

আরো পড়তে পারেন

ফ্রেন্ডশিপ

বন্ধুত্ব একটি সর্ম্পক। একটি শক্তিশালী সর্ম্পক। কখনো পুরুষে পুরুষে, কখনো নারীতে নারীতে এবং কখনো পুরুষ নারী। নারী পুরুষের বন্ধুত্বের ক্ষেত্র দুটি: হয় সেক্সচুয়াল, নয় ইন্টেলেকচুয়াল। পুরুষ তার জীববিজ্ঞানের কারণে সেক্সচুয়াল সর্ম্পকে স্বাভাবকিভাবে আগ্রহী থাকে বেশি। নারীর প্রবণতা থাকে ইন্টেলেকচুয়াল সর্ম্পকে বেশি। নারীর যৌন আকাঙ্ক্ষা পুরুষের তুলনায় মোটেও কম নয়, বরং অনেক ক্ষেত্রে উল্টো অনেক বেশি,….

২০২৩ সালে শিল্প-সাহিত্যের যে সকল গুণীজন আমাদের ছেড়ে গেছেন

মুহূর্তকে বেঁধে রাখার চেয়ে বাঘ বেঁধে রাখা সহজ। মুহূর্ত চলে যায় অনন্তের পথে। আর সেই পথ ধরেই আসে মৃত্যুর পরোয়ানা। অন্ধ জাতিস্মর কিনারা করে উঠতে পারে না কিছুই। তার প্রাণহীন চোখ থেকে হারিয়ে যায় কার্তিকের মাঠ, তার ওপর চড়ুইভাতির রোদ, ঝিঁঝিঁ পোকাদের অকারণ ছুটোছুটি, ঘরময় ছড়িয়ে থাকা পাণ্ডুলিপি, বারান্দার কোনে নুয়ে পড়া জুঁই ফুলের চারা,….

আবুবকর সিদ্দিক: দ্যুতিময় কবির প্রয়াণ

দ্যুতিময়, জ্যোতির্ময়, ভাস্বর। আছেন প্রেমে, আছেন দ্রোহে। যার চয়িত শব্দগুচ্ছ অনুপ্রেরণা যুগিয়েছে স্বৈরাচার ও সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী আন্দোলনকারীদের। সেই কবি, কবি আবুবকর সিদ্দিক। বার্ধক্যজনিত রোগে বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) ভোর পৌনে ছয়টার দিকে খুলনা নগরীর ৫ নম্বর মুন্সিপাড়ায় ছোট বোনের বাসায় প্রয়াত হন কবি আবুবকর সিদ্দিক। আবুবকর সিদ্দিকের জন্ম ১৯৩৪ সালে ১৯ আগস্ট, বাগেরহাটের গোটাপাড়া গ্রামে মাতুলালয়ে। একই….

error: Content is protected !!