Author Picture

কুমকুম দত্তের একগুচ্ছ কবিতা

কুমকুম দত্ত

দেবীর মুখ

শরত কাশফুল দুলে বাতাসে শেষ প্রহর
সূর্যাস্তে নিবিড় সহমরণ সুখের
বুকের নদী স্বচ্ছ গভীর জলধারা হাতছানি
কাগজের নৌকা নির্মাণে জীবন পারাপার
পরিশীলিত কালের কলস
যৌথ যাপন দেবীর মুখ আনন্দে আত্মহারা
শঙ্খধ্বনি বেজে ওঠে দিনশেষে মেঘের পালক
ঝরে পড়ে রাত্রি আঁধার করুণ লোহার গারদে

 

আকাশে মৃত চাঁদ

কামনার বিশুদ্ধ আঁধারে খুনসুটি
বালিশে মাথা গুঁজে ঠাই;
রাতগুলো ফুরোয় না সহজে
আসন পাতে শয্যাসঙ্গিনী
জোড় আলিঙ্গনে শক্ত মুঠোয়;
রাত হয় পরস্পর ভোর
বিকিরণে চাঁদ সবিনয় নিবেদন।
নির্জনে রাতের অন্তরালে ঝুলে
অসীমের আকাশে মৃত চাঁদ।

 

তোমার কাছে ফিরছি

তোমার কাছে লিখছি মানে
ফিরছি তোমার কাছে আবার
পরাজিতের দায় নিয়ে নির্বিকার
একান্তে নিজের গন্তব্যের দিকে।
একলা বছরের-পর-বছর
অজস্র ঘুমের প্রহর সেলাই করে;
গোপনে তোমার কাছে ফিরছি আবার
দাঁড়িয়ে আছে সময় একাকী অন্ধকার।

 

একলা মেঘলা শ্রাবণ

বাঁশির ভাঙনের সুর গভীর
বুকে ঢেউ তোলে অতল;
অনুরূপ বিরহে রাধার
চোখ নির্বিকার যমুনার জল।
ডুবে আছি আকণ্ঠে প্রেম আস্বাদন
ছায়া সুদূরের সাথে;
বসে একলা মেঘলা শ্রাবণ
আকাশ বিরহ জগৎ জুড়ে…

 

জাগে ঢেউ বিষাদের

রক্তে জাগে ঢেউ বিষাদের
জোয়ার পূর্ণিমা প্রেম পরাগায়ন
বিরহ বিস্তীর্ণ বিরান;
চোখ যায় যতদূর
ছড়ানো ছিটানো শস্যদানা
লাঙল পড়ে আছে পতিত জমি
কাঁধে জোয়াল কৃষকের;
রক্তে জাগে ঢেউ বিষাদের।

আরো পড়তে পারেন

আজাদুর রহমানের একগুচ্ছ কবিতা

সবুজ স্তন প্রচুর নেশা হলে দেখবেন— গাছগুলো বৃষ্টি, পাতার বদলে বব চুল, কী ফর্সা! তার বাহু, উরু ব্যাঞ্জনা, জলভারে নুয়ে আছে সবুজ স্তন। নেশা এমনই এক সদগুন যে, মাঝরাতে উড়ে উঠবে রাস্তাগুলো আকাশে মুখ দিয়ে আপনি বলছেন— আমাদের একটা পৃথিবী ছিল, ঠিক চাঁদের মত গোল। চুর পরিমাণ নেশা হলে, আপনার পা থেকে অহংকারী পাথর খসে….

গাজী গিয়াস উদ্দিনের একগুচ্ছ কবিতা

ক্লান্তির গল্প যারা উপনীত সন্ধ্যে বেলায় ফিরে দেখো দিন মলিন স্বপ্ন – ধূসর জীবন, প্রখর রোদের শায়ক ক্রীড়া প্রাচুর্যে আত্মহারা ছিলে স্বাধীন একদিন, পশ্চিম বেলা চেয়ে চেয়ে আজ শেষ করো ক্লান্তির গল্প।   ছড়ানো বিদ্রুপ সাপের চুমোতে কোথা বিষ হিংস্র নিশ্বাসে তোমার গরল বিশ্বাসে আমাকে পাবে জিয়ল সরল। রুক্ষতা ছেঁটে ফেল – চেহারা কমনীয় সব….

বিপিন বিশ্বাসের একগুচ্ছ কবিতা

শূন্যতায় বাজে প্রণবধ্বনি শূন্যতায় বাজে প্রণবধ্বনি আড়ালে যার মহাজাগতিক রশ্মির চারণভূমি প্রতিবন্ধকতাকে পাশকাটিয়ে নিমগ্ন বিশ্বের স্বরূপ দেখি ধ্যানের স্তরে। মায়ার কায়া ঝেড়ে ফেলে সত্যকে চিনি আপন করে জ্যোতির্ময় জেগে আছে দীপ্ত শিখার আপন জলে । মূল্যবোধের সলতে টাকে মারতে চাই না দিন-দুপুরে অন্ধকারে আলোক রেখা সদাই খোঁজি হৃদ মাঝারে।   জীবনের ধর্ম এই জীবন মা….

error: Content is protected !!