Author Picture

মইনুল ইসলামের টুকরো কবিতা

মইনুল ইসলাম

বৃষ্টি আর মিষ্টি
~
এই ভেজা ডালটাতে যে পাখিটা এসে বসে
ওর নাম বৃষ্টি,
এই ভেজা চুলে যে মেয়েটি দাড়ায় কাছে এসে
ওর নাম মিষ্টি,
এই বৃষ্টি আর মিষ্টিকে নিয়েই আমার মনে
যতোসব অনাসৃষ্টি।


বয়সকাল
~
আমার যখন বয়স হলো
সেই সাথে তোমারও হলো,
আমি যখন কচি লেবু পাতার ঘ্রানে মাতাল হলাম—
সেই রোগ তোমাকেও ধরলো,
তারপর আমাদের মাঝে কত কি যে হয়ে গেল!


কে জানতো
~
কে জানতো তোমাতে আমাতে এইখানে দেখা হবে?
কে জানতো এই দেখা দিনে দিনে এমন প্রগাঢ় হবে?
কে জানতো একদিন আমি সিগারেটের মত পুড়েঁ পুঁড়ে নিঃশেষ হবো—
তুমি কিঙ্করী সেজে কোন অচেনার ঘরে বাসর সাজাবে?


ভালবাসা
~
সীমা নেই, কোন পরিসীমা নেই
বোঝার সাধ্য নেই কারো,
চেয়ে দেখো ওই আকাশটাকে—
ভালবাসার মাপকাঠি দিয়ে কি তাকে মাপতে পারো?

আরো পড়তে পারেন

আজাদুর রহমানের একগুচ্ছ কবিতা

সবুজ স্তন প্রচুর নেশা হলে দেখবেন— গাছগুলো বৃষ্টি, পাতার বদলে বব চুল, কী ফর্সা! তার বাহু, উরু ব্যাঞ্জনা, জলভারে নুয়ে আছে সবুজ স্তন। নেশা এমনই এক সদগুন যে, মাঝরাতে উড়ে উঠবে রাস্তাগুলো আকাশে মুখ দিয়ে আপনি বলছেন— আমাদের একটা পৃথিবী ছিল, ঠিক চাঁদের মত গোল। চুর পরিমাণ নেশা হলে, আপনার পা থেকে অহংকারী পাথর খসে….

গাজী গিয়াস উদ্দিনের একগুচ্ছ কবিতা

ক্লান্তির গল্প যারা উপনীত সন্ধ্যে বেলায় ফিরে দেখো দিন মলিন স্বপ্ন – ধূসর জীবন, প্রখর রোদের শায়ক ক্রীড়া প্রাচুর্যে আত্মহারা ছিলে স্বাধীন একদিন, পশ্চিম বেলা চেয়ে চেয়ে আজ শেষ করো ক্লান্তির গল্প।   ছড়ানো বিদ্রুপ সাপের চুমোতে কোথা বিষ হিংস্র নিশ্বাসে তোমার গরল বিশ্বাসে আমাকে পাবে জিয়ল সরল। রুক্ষতা ছেঁটে ফেল – চেহারা কমনীয় সব….

বিপিন বিশ্বাসের একগুচ্ছ কবিতা

শূন্যতায় বাজে প্রণবধ্বনি শূন্যতায় বাজে প্রণবধ্বনি আড়ালে যার মহাজাগতিক রশ্মির চারণভূমি প্রতিবন্ধকতাকে পাশকাটিয়ে নিমগ্ন বিশ্বের স্বরূপ দেখি ধ্যানের স্তরে। মায়ার কায়া ঝেড়ে ফেলে সত্যকে চিনি আপন করে জ্যোতির্ময় জেগে আছে দীপ্ত শিখার আপন জলে । মূল্যবোধের সলতে টাকে মারতে চাই না দিন-দুপুরে অন্ধকারে আলোক রেখা সদাই খোঁজি হৃদ মাঝারে।   জীবনের ধর্ম এই জীবন মা….

error: Content is protected !!