প্রবন্ধ

প্রেমের বুলি

একজন তরুণ প্রেমিক। পিটুইটারি গ্ল্যান্ড এবং তার সাঙ্গোপাঙ্গোর দল বানের জলের মতো রক্তে ঢেলে দিচ্ছে ডোপামিন, সিরোটোনিন, অক্সিটোসিন, টেসটোস্টেরন জাতীয় প্রেমের হরমোন। কপালগুণে জুটেছে ভালোবাসার জন- তাকে জানাতে হবে তোলপাড় হৃদয়ের কথা। কিন্তু কেমন করে? প্রেমের হরমন সবাইকে অল্প সময়ের জন্য লাইলী বা মজনু বানিয়ে দিতে পারে, কিন্তু মুখে প্রেমের বুলি জোটাতে পারে না। মনভোলানো….

রোমান্টিক প্রেমের চিঠি

রবীন্দ্রনাথের ‘সমাপ্তি’ ছোটগল্পে মৃন্ময়ী তার স্বামীকে লিখেছিলো, ‘তুমি কেমন আছ, আর তুমি বাড়ি এসো। এইবার তুমি আমাকে চিঠি লিখো, আর কেমন আছ লিখো, আর বাড়ি এসো, মা ভালো আছেন, বিশু পুঁটি ভালো আছে, কাল আমাদের কালো গোরুর বাছুর হয়েছে।’ ছেলেবেলায় একটি বইয়ে, লেখকের নাম ভুলে গেছি, আরেকটি প্রেমের চিঠি পড়েছিলাম, যেখানে স্বামী তাঁর স্ত্রীকে লিখছেন,….

মারমুখো প্রেম

“প্রেমের ফাঁদ পাতা ভুবনে, কে কোথা ধরা পড়ে, কে জানে… গরব সব হায় কখন টুটে যায়, সলিল বহে যায় নয়নে।” আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র-ছাত্রী-শিক্ষক-শিক্ষিকারা খুব কাছাকাছি থেকে পরস্পরকে জানাজানির সুযোগ পায়, তাই প্রেমের জাল এখানে বিশেষ ভাবে ছড়ানো। অনেকে এই জালে বারে বারে জড়িয়ে পড়ে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছাত্র-ছাত্রীরা সাধারণত নিজেদের মধ্যেই প্রেম বিনিময় করে, তবে শিক্ষক-শিক্ষিকারাও কখনো….

ছবিটি কি এখনো চাঁদে পড়ে আছে?

মার্কিন নভোচারী চার্লস ডিউক যখন চাঁদে পা রাখেন তখন তার বয়স মাত্র ৩৬। সর্বকণিষ্ঠ ব্যক্তি হিসেবে তিনিই প্রথম চাঁদে গিয়েছিলেন। এটা শুধু তার জন্য নয় গোটা দুনিয়ার ইতিহাসের জন্যও একটি বড় ঘটনা। কিন্তু ডিউক ঐতিহাসিক ঘটনাটিতে একটি মাত্রা যোগ করলেন। ১৯৭২ সালের ২০ এপ্রিলের চন্দ্র-অভিযানের কথা যখন ওঠে তখন ওই মাত্রাটির কথাও সামনে চলে আসে।….

বায়োসেন্ট্রিজম ও উন্নয়নের ধারণা

বায়ো শব্দটি গ্রিক, যার অর্থ হচ্ছে জীবন। বায়োসেন্ট্রিজম শব্দটার অর্থ করা যেতে পারে জীবনকেন্দ্রবাদ। এই টার্মটি দার্শনিকরা ব্যবহার করেছেন দর্শনের ইতিহাসে। সাম্প্রতিক এটা আবারো আলোচিত হচ্ছে চিন্তার জগতে। পুঁজিবাদের উন্নয়নের লেলিহান আগুনের বিপরীতে দাঁড়িয়ে এটি জীবন-প্রকৃতি রক্ষার কথা বলে। বিশেষ করে উন্নয়নের লাগামহীন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হিসেবে দুনিয়ার পরিবেশের যে ক্ষতি হয়ে চলেছে, তার সমালোচনা করে বায়োসেন্ট্রিজম।….

কম্পিউটারের পরকীয়া প্রেম

‘‘কি কব মোর দুঃখের কথা। আমার বঁধুয়া আনবাড়ি যায়, আমার আঙিনা দিয়া ঘাঁটা।’’ আমার কম্পিউটার আনবাড়ি যায়। ওর ভারী মন্দ স্বভাব। নিজের সুন্দরী আধুনিকা মাউসকে ফেলে পাশের ঘরের ল্যাপটপের বেঢপ স্থূলকায়া মাউসের সাথে প্রেম করছে! বেহায়া, বেলাজ। আমার চোখের সামনে দুই সপ্তাহ ধরে এই প্রেমলীলা চলছিল। ভেবেছিলাম কম্পিউটারটিকে অন্য কোনো রোগে ধরেছে, প্রেমরোগের কথা ভাবি….

মহোত্তম কবিতা সম্পর্কে সিদ্ধান্তে আসার প্রতিযোগিতা

যখন ছোট্ট শিশু ছিলাম, মনে হয়, পাঁচ কি ছয় বছরের, আমার ভাবনার ভিতর একটা প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিলাম, বিশ্বের মহোত্তম কবিতা সম্পর্কে সিদ্ধান্তে আসার প্রতিযোগিতা। চূড়ান্তে নির্বাচিত হয়েছিলো দু’টি: ব্লেইকের ‘‘দ্য লিটল ব্ল্যাক বয়’’ এবং স্টিফেন ফস্টারের ‘’সোয়ানি রিভার’’। গুটিগুটি পদক্ষেপে এগিয়ে গিয়েছিলাম আর দ্বিতীয় শোবার ঘর পেয়েছিলাম লং আইল্যান্ডের সাউথ শোরের ছোট্ট এক গ্রাম সিডারহার্স্টে,….

প্ল্যাঙ্ক এর সুত্র এবং আলো-কোয়ান্টাম প্রস্তাবনা

সত্যেন্দ্রনাথ বসু ও আইনস্টাইনের চিঠির আদান প্রদান ও ফলশ্রুতিতে বোস-আইনস্টাইন পরিসংখ্যান নামে কোয়ান্টাম মেকানিক্সের একটি নতুন ধারণার সূচনা কাহিনি এখন বাংলাভাষীদের কাছে কিংবদন্তীতে পরিণত হয়েছে। সত্যেন বসু সে সময়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত ছিলেন। বাংলা ইউকিপিডিয়া ও অন্যান্য কিছু অনলাইন প্লাটফর্মের সুবাদে জানা যাচ্ছে যে তিনি গবেষণা প্রবন্ধটি প্রথমে একটি বিখ্যাত জার্নালে প্রকাশের জন্য পাঠিয়েছিলেন। সেখান….

সিংহকে বশে আনলেন ইউসুফ কার্শ

ম্যাকেনজি কিং তখন কানাডার প্রধানমন্ত্রী। তিনি প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ আলোকচিত্রী ইউসুফের কাজের প্রতি ভীষণভাবে আকৃষ্ট। ফলে যারা তার সঙ্গে দেখা করতে আসতেন তাদের ছবি তুলতে তিনি ইউসুফকে সুযোগ করে দিতেন। ১৯৩৫ সালে ইউসুফ কানাডার সরকারি আলোকচিত্রী হিসেবে নিয়োগ পান। বড় বড় মানুষের ছবি তোলা ইউসুফের নেশায় পরিণত হয়ে গেল। বলছি বিশ্বখ্যাত পোরট্রেট আলোকচিত্রী ইউসুফ কার্শের কথা।….

এক রূপসী মেয়ের সুখদুঃখ

‘চোখ যে ওদের ছুটে চলে গো… ধনের বাটে, মানের বাটে, রূপের হাটে গো।’ মেয়েটি গ্রিক দেবী এফ্রোডাইটের মতোই রূপসী। দুধে-আলতায় মেশানো গায়ের রং, মাথায় ঢেউ খেলানো সোনালী চুল, হাতে বই আর খাতা। ঘাড় নাড়িয়ে, কানের দুল দুলিয়ে হেসে হেসে কথা বলছিলো। মেয়েটির স্বামী পাশে দাঁড়িয়ে আছে। মুখে কোনো কথা নেই, একবার আমার দিকে একবার স্ত্রীর….

error: Content is protected !!