শ্বেতা শতাব্দী এষ-এর একগুচ্ছ কবিতা

শ্বেতা শতাব্দী এষ

ট্রমা

জ্বরের স্বভাবে নেমে আসে হাইপার স্পেস-
শহরের সবচেয়ে বিবশ বারান্দাটির কোণে
যেখান থেকে সামনে তাকালেই ফুটে ওঠে
মানুষের চলে যাওয়া…
এইখানে থেমে থাকে ট্রমা-
শ্বাসেদের কেটে যাওয়ার অনেক গোপনে…

 

নির্লিপ্ত

ভালোবাসা মরে যাবার মতো হাওয়া—
এ-গ্রীষ্মে বুকের ভেতর উত্তাপ নেই, চলো ফিরে যাই।
গলি থেকে বাড়ি বেশি দূরে নয়! শর্তবন্দি মন;
চলো ফিরে যাই, এ-হাওয়া মনের জন্য ক্ষতিকর।
আমাদের রক্তের নিথর প্রবাহ ধরে ফিরে যাওয়া ভালো—
মৃতদের আর্তনাদ মিশে যাক হাওয়ার হাসিতে…

 

কূট

অমোঘ শূন্যতার ভেতর
কোথায় হারিয়ে যাচ্ছে সাজানো প্রেম—
অর্থহীন অহঙ্কারে একটা কুকুরের চোখ
জ্বলজ্বল করে—
দূরের থেকে অন্ধ ফকিরের গান ভেসে এলে
হঠাৎ বিদীর্ণ হয়ে যায়
ভেবে রাখা সমস্ত দাবার কৌশল!

 

ত্রিস্তান

১.
শীতের সাময়িক বেশে তোমার জীবন যেন
প্লাস্টিক ফুলের বাগান
যেখানে প্রতিদিন সেল্ফিরা হেসে ওঠে খুব… তারপরও
কুয়াশা জানে দ্বিধার পরিনতি শেষে
বিচ্ছিন্নতা এক ‘নিজস্ব নদীর নাম!’

২.
রাত্রির দেয়ালে ঝুলে থাকে খঞ্জর
আয়না-বিহীন ঘর,
পাথরেরও মন থাকে জলের অতলে…
ভুলে যাই ‘ফেরা-পথ’
মুখোশে মুখোশে
ব্যক্তিগত অন্ধকারে আমরা পরস্পর!

৩.
প্রমান সাপেক্ষ অংকের সামনে ঝরে যাচ্ছে
অজস্র না-ফোটা ফুল—ঘোরগ্রস্ত সময়ে
ঢুকে যাই একটা শান্ত জলাশয়ে।
শহরে তখন বিদ্রূপ, অন্ধকার গিলে খাচ্ছে
আগলিয়ে রাখা মাস্তুল—

আরো পড়তে পারেন

কামরুল আলম সিদ্দিকীর একগুচ্ছ কবিতা

তোমার জন্য রাখছি তুলে . তোমার জন্য রাখছি তুলে আমার চোখের রক্ততারা ফুল। হয় যদিবা দেখা আমার, রেখো তোমার, বুকের ফোটা দু’কূল। তোমার সাথে দেখা হলেই বৃষ্টি হতো অমন খরার দিনে… মেঘেরা সব আসতো ফিরে, আসতো ফিরে উজান ঠেলে মীনে। আগুন ফুটে ফাগুন হতো, দোঁআশ দেশে বাণ ডাকতো জলে। দোঁআশ ফুলের মেয়ে তুমি, তোমায় দেখে….

মুহম্মদ ইমদাদ-এর তিনটি কবিতা

অতীত বহু বছর ধরে আমরা আমাদের অতীতের পাশ দিয়ে আসা যাওয়া করি। কিন্তু একটাও কথা বলি না অতীত আমাদের দুশমন ছিল নাকি? মনে হয় ছিল। না হলে কীভাবে কীভাবে সে অল্প দামে কিনে নিয়েছিল জীবনের প্রথম হাতঘড়ি লাল ওয়াকম্যান মানিব্যাগ চিঠি?   আমিই আমার নৌকা, আমিই আমার মাঝি জন্ম উত্তাল, রাগী, বিপদসংকুল এক সমুদ্রে। জন্মমাত্র….

ফয়সল নোই’র একগুচ্ছ কবিতা

এক বর্ষা সন্ধ্যায় আজিজ মার্কেটের ঘটনা বারান্দা ছেড়ে ছোট্ট নর্দমা সৌখিন এক লাফে পার হয়ে শেষ-মেশ একটি রিকশা পেয়ে গেল মেয়েটি; আঁধার বৃষ্টির সন্ধ্যা মাঝ পথে ক’ফোটা বৃষ্টি ধন্য হলো তাকে ছুঁতে পেরে ! … পিছে ভুত-চোখে চেয়ে আছে মুগ্ধ আজিজ মার্কেট দোকানের বইগুলো সুখে আছে আজ, জড়াজড়ি করে শুয়ে আছে র্যাকে। ঝড়-বর্ষার রাত, শাহবাগে….